ভাইরাল ভিডিওঃ “নোংরা পোশাকে এসেছ” মেট্রোর পর এবার শিয়ালদার ট্রেনে যুগল নিগ্রহ, প্রতিবাদ কই?

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

ট্রেনে বয়জেষ্ঠ যাত্রীদের দ্বারা যুগল নিগ্রহের ঘটনা ঘটল আবার। এবার আর প্রমাণ ছাড়া নয়, ভিডিওতে পরিষ্কার হুমকি শোনা গেল এক প্রেমিক যুগলের প্রতি। ২৩শে জুন এই ভিডিও পোস্ট হওয়ার পরই ভাইরাল হয়ে যায় ফেসবুকে। এখনো পর্যন্ত প্রায় ১১ হাজার শেয়ার হয়েছে ভিডিওটি দেখেছেন প্রায় ৮ লক্ষ মানুষ। কলকাতার বাসিন্দা অনিন্দিতা রায় যিনি কিনা একটি বেসরকারি ট্রাভেল কোম্পানির কর্মী, গত ২৩শে জুন সঙ্গী অনীক ঘোষের সাথে  একটি ট্রেনের লোকাল কামরায় উঠেছিলেন শিয়ালদা থেকে। তার বয়ান অনুযায়ী- অত্যাধিক গরমে তারা একটি  জেনারেল কামরায় উঠে বসার পর্যাপ্ত জায়গা না পেয়ে দুজন মাঝবয়সী ‘ভদ্রলোক’কে একটু সরে বসতে বলেন এই নিয়ে হালকা কথা কাটাকাটির পর ওই ‘ভদ্রলোকে’রা অনিন্দিতাকে লক্ষ্য করে কটুক্তি শুরু করেন।

অভিযোগ অনুযায়ী যুগল কে লক্ষ্য করে বলা হয়- “যাও বাড়ি গিয়ে কোলে নিয়ে বসে থাকো” , মনে করিয়ে দেওয়া হয় কিছুদিন আগে মেট্রোরেলে ঘটে যাওয়া অন্য আরো একটি যুগল নিগ্রহ তথা মারধরের ঘটনা। বলা হয় “মেট্রোর কেসটা তোমাদের মত জেনারেশন এর জন্যই হয়েছে” অনিন্দিতা কে তার পোশাক সম্পর্কেও বিধান দেওয়া হয় “এইসব ড্রেস পড়ে উঠবে না”! অনিন্দিতা জানিয়েছেন তিনি প্রত্যেক দিনের মতোই সাধারণ জিন্স ও টপ পরে উঠেছিলেন ট্রেনে। ভিডিওতে দেখা যায় মাঝবয়সী সবুজ জামা পরা ‘ভদ্রলোক’ ভিডিও করার সময় আগ্রাসীভাবে যুবককে বলছেন “তুমি একটা মহিলা”। অনিন্দিতা কে তার পোশাক নিয়ে কটু কথা বলায় সে প্রতিবাদ করে , বলেন “হাজার বার উঠব… এটা জেনারেল (কামরা) , লেডিস কামরা নয়” এই কথার সাথে সাথেই দমনমূলক ভঙ্গিমায় আঙ্গুল তুলে হুমকি দেয়, সংশ্লিষ্ট লোকটি বলে ” এই ভাবে তেড়ে আসবে না, তুমি মানুষ চেন না” অনিন্দিতা আবার প্রতিবাদ করলে তাকে পাশের আরেকটি সাদা জামা পরিহিত লোক বলেন ” যাও নোংরা পোশাক পরে এসেছ, যাও” এই ঘটনায় কারজতই স্তম্ভিত বাংলার নেটিজেন।

ফেসবুক পোস্টে দেখুন সেই ভাইরাল ভিডিও

অনীক ফেসবুকেই লিখেছেন ” সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ, কিন্তু বিশ্বাস করুন আমরা এই ভিডিও কোন সমর্থন বা সহানুভূতির আশায় আপলোড করিনি, আমি ছেয়েছিলাম সমাজের এই মুখটাকে তুলে ধরতে।
সবকিছুর পরেও এই ঘটনা ঘটেছে কলকাতাতেই, “আমি কলকাতা কে ভালোবাসি” একথা টুকুও বলতে আমার ভয় হয়। আমরা যদি এই অবস্থার সম্মুখীন হই তাহলে আমাদের পরের প্রজন্ম কিসের সম্মুখীন হবে? আমাদের প্রত্যেকেরই বোন আছে, ভাই আছে। তাদের সাথে কি ঘটতে চলেছে? যদি সম্ভব হয় এই ভিডিও টি শেয়ার করুন যাতে ঐ তথাকথিত বয়জেষ্ঠদের আত্মীয় বা পরিবার পরিজনের কাছে এই ভিডিও পৌছে যায়”

 

এই রকম একের পর এক নিগ্রহের ঘটনায় বার বার লজ্জা পাচ্ছে কোলকাতার উদার সংস্কৃতি । অনিন্দিতা তার পোস্টে প্রশ্ন তুলেছেন – জন্মদাত্রী মহিলা দের কে এইসব প্রত্যেক দিন শুনতে হয় । ওনার ভাষায় “এটা আমাদের নতুন সমাজ, যেখানে ট্রেনে বাসে উঠলেই এইসব এখন ডেলি রুটিন হয়ে গেছে।! আমি শুধু প্রশ্ন করতে চাই এই ব্যবহার কি বয়জেষ্ঠদের কাছে আশা করা যায়?” প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য গত মাসেই মেট্রোরেলে ঘনিষ্ঠভাবে দাঁড়িয়ে থাকার জন্য প্রেমিকযুগলকে বেধড়ক মারধর করে কিছু বয়জেষ্ঠ ব্যক্তি যার পরে উত্তাল হয়ে ওঠে কলকাতার নাগরিক সমাজ। তার কিছুদিন পরেই আরো একটি ঘটনার ভিডিও উঠে আসে চুঁচুড়া শিল্প মেলা থেকে যেখানে একজন কিশোরীর সাথে অশালীন আচরণ করেন একজন মধ্যবয়সী ” ভদ্রলোক”। প্রশ্ন উঠছে – এভাবে প্রাপ্তবয়স্কদের নীতি পুলিশ হয়ে ওঠার পেছনে কি সমাজের একাংশের হতাশা কাজ করছে নাকি নতুন প্রজন্ম গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে না আগের প্রজন্মের কাছে?

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *